শেয়ার
 
Comments

ভারতীয় জনতা পার্টি ভারতের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল দেশের সব অংশে সক্রিয়। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রথম দল, তিন দশকের মধ্যে সব কটিতেই জয় লাভ করেছে বা সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। এছাড়াও এটা প্রথমবার ছিল যে অ-কংগ্রেস পার্টি এই কৃতিত্ব অর্জন করেছে।

২৬ মে, ২০১৪-তে শ্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন। তাঁর নেতৃত্বে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার কৃষক, দরিদ্র, সুবিধাবঞ্চিত, তরুণ, মহিলা এবং নব্য মধ্যবিত্তদের আকাঙ্খার পূরণ করতে এবং উন্নয়ন-ভিত্তিক শাসনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

শ্রী নরেন্দ্র মোদী রাষ্ট্রপতি ভবনে ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করছেন

১৯৮০ সালে ভারতীয় ইতিহাসে একটি নতুন অধ্যায় লেখা হয়েছে। এই বছর শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বে ভারতীয় জনতা পার্টির গঠন হয়েছে। বিজেপি গঠনের আগে ভারতীয় জনসংঘ জাতীয় রাজনীতিতে ১৯৫০, ৬০ ও ৭০ দশকে সক্রিয় ছিল এবং এর নেতা ডঃ শ্যামা প্রসাদ মুখার্জি স্বাধীন ভারতের প্রথম মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। শ্রী মোরারজি দেশাই-এর নেতৃত্বে ১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৭৯ পর্যন্ত চলা জনতা পার্টির সরকারে জনসংঘের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। এটা ভারতের ইতিহাসে এই প্রথম অ-কংগ্রেস সরকার ছিল।

BJP: For a strong, stable, inclusive& prosperous India

নয়া দিল্লিতে বিজেপির সভায় শ্রী এল কে আদভানি, শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী এবং মুরলি মনোহর জোশী

আমাদের প্রাচীন সংস্কৃতি ও তত্ত্ব-এ অনুপ্রাণিত বিজেপি একটি মজবুত, আত্মনির্ভরশীল, অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং সমৃদ্ধ ভারত তৈরি করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। পার্টি দীন দয়াল উপাধ্যায়ের 'সমাকলন মানবতাবাদ' চিন্তাধারায় গভীরভাবে অনুপ্রাণিত হয়েছে। বিজেপি ভারতীয় সমাজের সব স্তরের, বিশেষ করে ভারতের তরুণদের ক্রমাগত সমর্থন পাচ্ছে।

এত অল্প সময়ে বিজেপি ভারতীয় রাজনৈতিক ব্যবস্থায় একটি প্রধান শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। ১৯৮৪ সালে (স্থাপিত হওয়ার ৯ মাস পর) মাত্র ২টি আসন পাওয়া পার্টি ১৯৮৯ সালে ৮৬টি আসনে বিজয় অর্জন করেছে এবং বিজেপি কংগ্রেস বিরোধী রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে ও পরিণামস্বরূপ ন্যাশনাল ফ্রন্ট গঠন হয়েছে যে ১৯৮৯-৯০ ভারতে ক্ষমতায় ছিল। ১৯৯০ সালের পর বিজেপি অনেক রাজ্যে সরকার গঠন করেছে। ১৯৯১ সালে ভারতীয় জনতা পার্টি সংসদে দেশের প্রধান বিরোধী দলের ভূমিকায় চলে এসেছিল যা যেকোনো নতুন দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি।

bjp-namo-in3

নয়া দিল্লিতে দলের সভায় বিজেপির নেতৃবৃন্দ

১৯৯৬ সালে শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। শ্রী বাজপেয়ী ছিলেন প্রথম প্রধানমন্ত্রী যে সম্পূর্ণরূপে অ-কংগ্রেস পটভূমি থেকে ছিলেন। ১৯৯৮ এবং ১৯৯৯-এর নির্বাচনে বিজেপি জনগণের জনাদেশ পেয়েছিল এবং বিজেপি শ্রী বাজপেয়ীর নেতৃত্বে ১৯৯৮ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ছয় বছর দেশের শাসনভার গ্রহণ করেছে। শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বে এনডিএ সরকার এখনো তার উন্নয়নমূলক বিভিন্ন উদ্যোগের জন্য মনে করা হয় যা ভারতের অগ্রগতিকে এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে।

bjp-namo-in2

নয়া দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহণ করছেন শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী

নরেন্দ্র মোদী ১৯৮৭ সালে সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন এবং মাত্র এক বছরে তিনি গুজরাতে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নিযুক্ত হন। তার সাংগঠনিক দক্ষতা শক্তিতে তিনি ১৯৮৭ সালে রাজ্যে 'ন্যায় যাত্রা' এবং ১৯৮৯ সালে লোক শক্তি যাত্রার আয়োজন করেছিলেন। এই প্রচেষ্টার ফলে ১৯৯০ সালে প্রথমবার গুজরাতে অল্প সময়ের জন্য বিজেপি সরকার গঠন হয়েছে এবং তারপর ১৯৯৫ সালে থেকে এখনো পর্যন্ত গুরজাতে বিজেপি শাসন করছে। ১৯৯৫ সালে শ্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিজেপির জাতীয় সচিব পদে নিয়োগ করা হয় এবং ১৯৯৮ সালে সংগঠনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদ জাতীয় সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। তিন বছর পর ২০০১ সালে পার্টি তাঁকে গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়। ২০০২, ২০০৭ এবং ২০১২-তে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে তিনি পুনর্নির্বাচিত হন।

বর্তমানে অনেক রাজ্যে সরকারের নেতৃত্ব ভারতীয় জনতা পার্টির হাতে আছে এবং অন্যান্য অনেক রাজ্যে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করছে। বিজেপি এনডিএ-এর একটি অংশ এবং পাঞ্জাব, মহারাষ্ট্র ও অন্ধ্রপ্রদেশে প্রধান সহযোগীদের সঙ্গে ক্ষমতায় আছে। এনডিএ একটি সুবিশাল এবং বৈচিত্র্যময় জোট এবং ভারতের বৈচিত্র্য ও গতিশীল ক্ষমতা প্রদর্শন করে।

বিজেপি সম্পর্কে আরো জানতে পার্টির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন

ভারতীয় জনতা পার্টির টুইটার পেজ

শ্রী লালকৃষ্ণ আদভানি জির ওয়েবসাইট

শ্রী রাজনাথ সিং-এর ওয়েবসাইট

শ্রী রাজনাথ সিং-এর টুইটার পেজ

শ্রী নিতিন গড়করির ওয়েবসাইট

নিতিন গড়করির টুইটার পেজ

শ্রী অরুণ জেটলির ওয়েবসাইট

শ্রী অরুণ জেটলির টুইটার পেজ

শ্রীমতি সুষমা স্বরাজের টুইটার পেজ

বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের টুইটার পেজ

 

বিজেপির বিভিন্ন মুখ্যমন্ত্রী

গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানির ওয়েবসাইট

বিজয় রুপানির টুইটার পেজ

হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টারের ওয়েবসাইট

মনোহর লাল খাট্টারের টুইটার পেজ

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের টুইটার পেজ

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের ওয়েবসাইট

উত্তরাখন্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের টুইটার পেজ

আসামের মুখ্যমন্ত্রী শ্রী সর্বানন্দ সোনওয়ালের টুইটার পেজ

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের টুইটার অ্যাকাউন্ট

অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডুর টুইটার পেজ

গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী শ্রী প্রমোদ সাভান্তের টুইটার পেজ

মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং'য়ের ওয়েবসাইট

এন বীরেন সিং'য়ের টুইটার পেজ

হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয় রাম ঠাকুরের ওয়েবসাইট

জয় রাম ঠাকুরের টুইটার পেজ

বি.এস ইয়েদুরাপ্পার টুইটার পেজ

Pariksha Pe Charcha with PM Modi
Explore More
আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

জনপ্রিয় ভাষণ

আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
Forex reserves surge by USD 4.34 bn to USD 581.21 bn

Media Coverage

Forex reserves surge by USD 4.34 bn to USD 581.21 bn
...

Nm on the go

Always be the first to hear from the PM. Get the App Now!
...
The Prime Minister, Shri Narendra Modi has expressed sadness over the untimely demise of actor Vivek.
April 17, 2021
শেয়ার
 
Comments

The Prime Minister, Shri Narendra Modi has expressed sadness over the untimely demise of actor Vivek.

In a tweet, Shri Modi said "The untimely demise of noted actor Vivek has left many saddened. His comic timing and intelligent dialogues entertained people. Both in his films and his life, his concern for the environment and society shone through. Condolences to his family, friends and admirers. Om Shanti."