শেয়ার
 
Comments
পরিবেশ সংরক্ষণে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ অত্যন্ত জরুরি। একাজে নির্দিষ্ট কয়েকজনের পরিবর্তে সামগ্রিকভাবে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী মোদী
ভারতের জনগণ যে কাজটি করার সিদ্ধান্ত নেন, কোনও শক্তিই সেটিকে প্রতিহত করতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী মোদী
উন্নয়ন ও পরিবেশের মধ্যে ভারসাম্য রেখে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী মোদী

আন্তর্জাতিক ব্যাঘ্র দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী নতুন দিল্লির লোক কল্যাণ মার্গে সর্বভারতীয় ব্যাঘ্র পরিসংখ্যান ২০১৮’র চতুর্থ পর্যায়ের প্রকাশ করেন।

এই সমীক্ষা অনুযায়ী ভারতে ২০১৮ সালে বাঘের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ৯৬৭।

এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী একে ভারতের এক ঐতিহাসিক সাফল্য বলে বর্ণনা করেছেন। ব্যাঘ্র সংরক্ষণে ভারতের অঙ্গীকারের কথা ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী এই কাজে জড়িত সংশ্লিষ্ট সকলের ভূমিকার প্রশংসা করেন। তিনি একে ‘সংকল্প সে সিদ্ধি’র আদর্শ উদাহরণ বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ভারতের জনগণ যে কাজটি করার সিদ্ধান্ত নেন, কোনও শক্তিই সেটিকে প্রতিহত করতে পারে না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারতে এখন প্রায় ৩ হাজার বাঘের বাস, যা বিশ্বে বাঘের বৃহৎ বিচরণ ক্ষেত্র।

শ্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ অত্যন্ত জরুরি। একাজে নির্দিষ্ট কয়েকজনের পরিবর্তে সামগ্রিকভাবে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, উন্নয়ন ও পরিবেশের মধ্যে ভারসাম্য রেখে চলতে হবে। আমাদের অর্থনীতিতে সংরক্ষণের ব্যাপারে বিশেষ আলাপ-আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে।

আমাদের নাগরিকদের জন্য আরও গৃহ নির্মান করতে হবে। একই সঙ্গে, বন্যপ্রাণীদের জন্য উপযুক্ত বিচরণভূমি সৃষ্টি করতে হবে। ভারতের সামুদ্রিক প্রাণী-নির্ভর একটি সমৃদ্ধ অর্থনীতি ও বাস্তুতন্ত্র গড়ে উঠবে।

প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, ভারত আর্থিক দিক থেকে এবং পরিবেশগতভাবে সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে। দেশে আরও সড়ক নির্মাণ, রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির পাশাপাশি, পরিচ্ছন্ন নদী এবং সবুজায়ন বৃদ্ধি পাবে।

বিগত পাঁচ বছরে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য দ্রুতগতিতে পরিকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি, বনাঞ্চল বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৪ সালে সংরক্ষিত অঞ্চলের পরিমাণ ছিল ৬৯২টি। ২০১৯ – এ তা বেড়ে হয়েছে ৮৬০। ২০১৪ সালে সম্প্রদায়গত অভয়ারণ্যের সংখ্যা ছিল ৪৩, যা এখন বেড়ে হয়েছে ১০০।

শ্রী মোদী বলেন, স্বচ্ছ জ্বালানি ও পুনর্নবীকরণযোগ্য জ্বালানি-ভিত্তিক অর্থনীতি গড়ে তুলতে ভারত সংকল্পবদ্ধ। দেশের শক্তি উৎপাদনে বর্জ্য ও জৈব পদার্থ ব্যবহার করা হচ্ছে। রান্নার গ্যাসের জন্য ‘উজ্জ্বলা’ এবং এলইডি বাল্বের জন্য ‘উজালা’ প্রকল্পের অগ্রগতির কথাও তিনি উল্লেখ করেন।

ব্যাঘ্র সংরক্ষণের জন্য প্রধানমন্ত্রী আরও বেশি উদ্যোগের ওপর জোর দেন।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন দপ্তরের মন্ত্রী শ্রী প্রকাশ জাভড়েকর, প্রতিমন্ত্রী শ্রী বাবুল সুপ্রিয় এবং মন্ত্রকের সচিব শ্রী সি কে মিশ্র উপস্থিত ছিলেন।

Click here to read full text speech

ডোনেশন
Explore More
আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

জনপ্রিয় ভাষণ

আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
PM Modi at BRICS: India world's most open, investment friendly economy

Media Coverage

PM Modi at BRICS: India world's most open, investment friendly economy
...

Nm on the go

Always be the first to hear from the PM. Get the App Now!
...
Here are the Top News Stories for 14th November 2019
November 14, 2019
শেয়ার
 
Comments

Top News Stories is your daily dose of positive news. Take a look and share news about all latest developments about the government, the Prime Minister and find out how it impacts you!