শেয়ার
 
Comments
We stand on the cusp of a new chapter in India-Israel relations driven by our people & mutual opportunities for betterment of lives: PM
In India, we have been taking steady steps over 3 years at both macro as well as micro-level, to make a difference. Our motto is Reform, Perform and Transform: PM
To enable entry of capital and technology, most of the sectors including defence, have been opened for FDI...We are now among the most open economies: PM
India’s development agenda is huge. It presents a vast economic opportunity for Israeli companies: PM Modi

ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী মহামান্য বেঞ্জামিননেতানিয়াহু,  

ভারত ও ইজরায়েলের শিল্পপতিগণ,  

ভদ্রমহিলা ও ভদ্রমহোদয়গণ|  

আমারদেশের প্রত্যেক নাগরিকের পক্ষ থেকে আমি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এবং ইজরায়েলের প্রতিনিধিবর্গকেস্বাগত জানাই| আমি দু ’দেশের সি.ই.ও.-দেরসঙ্গে উপস্থিত হতে পেরে আনন্দিত| প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এবং আমি দ্বিপাক্ষিকসি.ই.ও. ফোরামের মাধ্যমে ভারতীয় ও ইজরায়েলের শিল্পপতিদের সঙ্গে একটা ফলপ্রসূআলোচনা সমাপ্ত করলাম| এই আলোচনা এবং গত বছর শুরু হওয়া সি.ই.ও. ’দের অংশীদারিত্ব নিয়ে আমি বিশেষভাবে আশাবাদী|  

বন্ধুগণ!  

ইজরায়েলএবং সে দেশের নাগরিকদের প্রতি আমার সবসময়ই একটা গভীর অনুভুতি রয়েছে| গুজরাটেরমুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি ২০০৬ সালে ইজরায়েল সফরে গিয়েছিলাম| আবার গত বছর জুলাইমাসে আমি ইজরায়েল সফর করেছি, ভারত থেকে এটা ছিল এ ধরনের প্রথম সফর|  

সেটা একবিশেষ সফর ছিল| আমি অত্যন্ত কাছে থেকে ইজরায়েলের পরিচালনাকারী উদ্ভাবনা, উদ্যোগ ওঅধ্যবসায়ের অভিজ্ঞতা লাভ করেছি| গত কয়েক বছর ধরে নতুন শক্তি ও উদ্যমের জন্য আমাদেরসম্পর্ক পুনরুজ্জীবিত হয়েছে| যা আমাদের মধ্যেকার সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতেসহায়তা করবে| ভারত ও ইজরায়েলের মধ্যেকার সম্পর্কের এক নতুন দিগন্তের সন্নিকটে আমরাদাঁড়িয়ে রয়েছি, যে সম্পর্ক দু ’দেশেরমানুষের এবং তাদের জীবনযাত্রার উন্নয়নের জন্য পারস্পরিক সুযোগের দ্বারা পরিচালিত|  

আমাদেরএই সম্পর্কের রূপান্তরের জন্য বাণিজ্য ও শিল্পের ভূমিকা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ|আপনাদের যৌথ প্রচেষ্টাই আমাদের আলোচনা ও বাস্তব সাফল্যে সঠিক মূল্য যুক্ত করবে|ভারতীয় অর্থনীতিতে গতি নিয়ে আসা এবং আমাদের জন্য ইজরায়েলের অত্যাধুনিক প্রযুক্তিরপ্রাসঙ্গিকতার ক্ষেত্রে আমরা সম্মিলিতভাবে সীমাহীন বিষয় অর্জন করতে পারি|  

বন্ধুগণ!  

আমিআনন্দিত যে, আজ আমরা  ‘ভারত-ইজরায়েল শিল্পগবেষণা ও উন্নয়ন এবং প্রযুক্তি উদ্ভাবনা তহবিল (আই.ফোর এফ.) ’-এরঅধীনে একমাত্র যৌথ গবেষণা ও উন্নয়ন (আর. এন্ড ডি.) প্রকল্পের সূচনা করেছি| গতজুলাই মাসে আমি যখন ইজরায়েল সফরে গিয়েছিলাম, তখন এর ঘোষণা হয়েছিল| আগামী পাঁচ বছরধরে ব্যবহারের এই তহবিল মূলত বাণিজ্যিকভাবে পরিবর্তিত করা যেতে পারে এমন আধুনিকপ্রযুক্তিগত সমাধানে দু ’দেশের প্রতিভাকে একসঙ্গে সম্মিলিতকরার ক্ষেত্রে একটি প্রাথমিক সুযোগ|  

এইমঞ্চকে ব্যবহারের জন্য আমি দু ’দেশেরউদ্যোগীদের বিশেষভাবে উত্সাহিত করছি| তাছাড়া  ‘ডাটাঅ্যানালিসিস ’ ও  ‘সাইবার স্পেসসিকিউরিটি ’র মতো ক্ষেত্রে যৌথ গবেষণা ও উন্নয়ন প্রকল্পেরমাধ্যমে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত বিনিময়ের বিষয়ও সমান উদ্দীপনাপূর্ণ|  

আমিআনন্দের সঙ্গে উল্লেখ করতে চাই যে, ভারতে আগামী জুলাই মাসে (২০১৮) ভারত-ইজরায়েলউদ্ভাবনা ও প্রযুক্তি কনক্লেভ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে| আমি আশা করি এই কনক্লেভ নতুনপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে সহযোগিতাপূর্ণ উন্নয়নকে অনুপ্রাণিত করবে| তবে বাস্তবে এরপ্রাথমিক কাজ শুরু হয়ে যাবে আগামী বুধবার থেকে শুরু হওয়া  ‘আই.ক্রিয়েট ’ অনুষ্ঠান থেকেই| এইক্যাম্পাসের উদ্বোধনের জন্য আমরা দু ’জনেই গুজরাট যাচ্ছি| যেক্যাম্পাসকে একটি উদ্ভাবনী কেন্দ্র হিসেবে উন্নত করা হচ্ছে|  

বন্ধুগণ!  

আমিপ্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে গুজরাটের গ্রামীণ এলাকায় নিয়ে যাচ্ছি| কেননা সাধারণমানুষকে সুবিধা প্রদানের মধ্যেই প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনার প্রকৃত শক্তি নিহিত রয়েছে|উদ্ভাবনা ও চর্চার এক অনন্য পরিবেশে স্টার্ট-আপ নেশন হিসেবে ইজরায়েল গোটা বিশ্বেপরিচিত| ইজরায়েলের উদ্যোগীদের জন্যই এই স্বীকৃতি সম্ভব হয়েছে| আপনারা ইজরায়েলকেএকটা শক্তিশালী, স্থায়ী ও উদ্ভাবনী অর্থনীতি হিসেবে গড়ে তুলেছেন| আপনারা ৮০ লক্ষমানুষের দেশকে প্রযুক্তির এক বৈশ্বিক কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করেছেন|  

এটাজল-ক্ষেত্রের প্রযুক্তিই হোক বা কৃষি প্রযুক্তি হোক, অথবা খাদ্য উত্পাদন, এরপ্রক্রিয়াকরণ বা সংরক্ষণই হোক, ইজরায়েল এসবের অগ্রগতি ও নতুন পথ নির্মাণেরক্ষেত্রে একটা উজ্জ্বল উদাহরণ হয়ে আছে| ভূমি, জল ও অন্তরীক্ষে আপনাদের ব্যবহারিকবা ভার্চুয়াল সুরক্ষার প্রযুক্তি প্রশংসা কুড়িয়েছে| মূলত, জলের ক্ষেত্রেঘাটতিপূর্ণ ভারতের একটি রাজ্য থেকে উঠে আসায় আমি বাস্তবিকভাবেই ইজরায়েলেরজল-দক্ষতার প্রশংসা করছি|  

বন্ধুগণ!  

ভারতে বড়আকারের পাশাপাশি ক্ষুদ্র পর্যায়ের ক্ষেত্রেও আমরা গত তিন বছর ধরে দৃঢ় পদক্ষেপগ্রহণ করছি, যাতে পরিবর্তন নিয়ে আসা যায়| আমাদের মূল ভাব হচ্ছে: সংস্কার, সম্পাদনও রূপান্তর|  

এর ফলেদ্বিমুখী ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে| একদিকে আমাদের প্রক্রিয়া, প্রণালী ও নিয়মকে বিশ্বেরসেরার সঙ্গে মিলিয়ে নেওয়া হচ্ছে| অন্যদিকে আমরা দ্রুত প্রবৃদ্ধির গতিকে বজায় রাখতেপারছি|  

পরিকাঠামোক্ষেত্রে বিশেষ সংস্কার সত্বেও আমরা দ্রুততম ক্রমবর্ধমান প্রধান অর্থনীতিগুলিরমধ্যে রয়েছি| প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে এখন সর্বকালের মধ্যেবেশি| যুব অংশকে দক্ষ করে তোলা ও তাদের কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে অসাধারণ কাজ করাহচ্ছে| আমাদের জনসংখ্যার ৬৫ শতাংশের বয়স ৩৫ বছরের নীচে এবং তারা প্রযুক্তি-নির্ভরপ্রবৃদ্ধির জন্য আগ্রহী|  

এটাআমাদের ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জের পাশাপাশি বিশেষ সুযোগও| সেজন্য আমরা  ‘স্টার্ট-আপ ইন্ডিয়া ’ অভিযানের সূচনাকরেছি| এক্ষেত্রে ভারত ও ইজরায়েলের অংশীদারিত্বের বিশেষ সম্ভাবনা রয়েছে|ভারত-ইজরায়েলের উদ্ভাবনা-সেতু দুই পক্ষেরই  ‘স্টার্ট-আপ ’র ক্ষেত্রে সংযোগ হিসেবে কাজ করবে| ভারতের শিল্প, স্টার্ট-আপ এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে বিশাল জ্ঞান সংগ্রহ করার জন্য ইজরায়েলের এইসব ক্ষেত্রের সঙ্গেসহযোগী হওয়া উচিত বলে আমি বলে আসছি|  

*ভারতেররয়েছে আকার ও স্কেল    

*ইজরায়েলেররয়েছে তীক্ষ্ণতা ও প্রথম অবস্থানে থাকা    

প্রচুরধারণা ও প্রযুক্তি রয়েছে যা ভারতে ব্যবহারযোগ্য অথবা বাণিজ্যিকভাবে আনা সম্ভব|  

 

বন্ধুগণ!  

আজ, আমরাবৃহত উত্পাদনশীল দেশগুলোর একটি হিসেবে উঠে এসেছি| কিন্তু আমরা এখনও সবকাজ শেষ করতেপারিনি| আমাদের যুব অংশের শক্তিকে ব্যবহার করে আমরা বিশ্বের নির্মাণ কেন্দ্রেপরিণত হওয়ার চেষ্টা করছি| এই লক্ষ্য পূরণের সহায়তার জন্য  ‘মেক ইন ইন্ডিয়া ’ উদ্যোগকে নিয়ে আসাহয়েছে| এই উদ্যোগগুলোর সঙ্গে প্রথাগত অর্থনীতি ও সমন্বিত কর ব্যবস্থার এক নতুনবাস্তুতন্ত্রের সম্মিলনের মাধ্যমে আমরা নব-ভারত নির্মাণের প্রচেষ্টা করছি|  

আমরাভারতকে একটি জ্ঞান-নির্ভর, দক্ষতা-সমর্থিত ও প্রযুক্তি-চালিত সমাজে পরিণত করতেআগ্রহী| এর জন্য ডিজিট্যাল ইন্ডিয়া ও স্কিল ইন্ডিয়ার মধ্য দিয়ে এক বিশাল সূচনাইত্যমধ্যেই হয়ে গেছে| এই রূপান্তরের জন্য গত কয়েক বছরে আমার সরকার উল্লেখযোগ্যসংস্কারের কাজ করেছে|  

ব্যবসায়ীপ্রতিষ্ঠান ও কোম্পানি যেসব নিয়ম ও নীতির জন্য সমস্যার মুখোমুখি হতো, আমরা সেগুলোরমধ্যে অনেকগুলোর সমাধান করেছি| আমরা ভারতে  ‘বাণিজ্যসহজতার ’ জন্য আন্তরিকভাবে কাজ করছি|  

এর ফলে যে ফলাফল বেরিয়ে এসেছে, তার মধ্যে রয়েছে:  

*গত তিনবছরে ভারত বিশ্ব ব্যাঙ্কের বাণিজ্য সহজতার সূচকে ৪২ অবস্থান এগিয়ে এসেছে;  

*গত দুইবছরে আমরা ডব্লিউ.আই.পি.ও. ’র বিশ্ব উদ্ভাবনাসূচকে ২১ স্থান উপরে উঠে এসেছি;  

*গত দুইবছরে আমরা বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সূচকে ৩২ স্থান উপরে উঠেএসেছি, যা সমস্ত দেশের মধ্যে সর্বাধিক;  

* আমরাবিশ্ব ব্যাঙ্কের ২০১৬ সালের লজিস্টিক পারফরমেন্স সূচকে ১৯ স্থান এগিয়ে এসেছি;  

*আমরাইউ.এন.সি.টি.এ.ডি. ’র ১০টি এফ.ডি.আই.গন্তব্যের মধ্যে একটি|  

কিন্তুতারপরও আমরা থেমে থাকবো না| আমরা আরও করতে চাই এবং আরও ভালোভাবে করতে চাই|  

বিনিয়োগএবং প্রযুক্তিকে নিয়ে আসা সহজতর করে তুলতে প্রতিরক্ষা সহ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেইএফ.ডি.আই. ’র জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে| ৯০শতাংশেরও বেশি এফ.ডি.আই. ’র অনুমোদন স্বয়ংক্রিয়ভাবেই করারপদ্ধতিতে রাখা হয়েছে| আমরা এখন উদার অর্থনীতির একটি| দিন কয়েক আগে আমরা সিঙ্গেলব্র্যান্ড রিটেল এবং কনস্ট্রাকশন ডেভেলপমেন্ট-এর ক্ষেত্রে ১০০% স্বয়ংক্রিয় পথেরএফ.ডি.আই. ’র অনুমোদন দিয়েছি| আমরা আমাদের ন্যাশনাল ক্যরিয়ারএয়ার ইন্ডিয়াকে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য খুলে দিয়েছি|  

প্রতিদিনআমরা ভারতে বাণিজ্য সহজতার জন্য কাজ করছি| করের ক্ষেত্রে আমরা বেশকিছু ঐতিহাসিকসংস্কার করেছি| যুগান্তকারী জি.এস.টি. ’রসংস্কারকে সাফল্যের সঙ্গে সহজেই চালু করা গেছে|  

এভাবেভারত এখন পর্যন্ত সর্ববৃহত বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সংস্কার করেছে| জি.এস.টি. এবংঅর্থনৈতিক প্রযুক্তি ও ডিজিট্যাল বিনিময়ের সূচনার মধ্য দিয়ে আমরা বাস্তবিকই একআধুনিক কর-ব্যবস্থার দিয়ে এগিয়ে গেছি, যা একইসঙ্গে স্বচ্ছ, স্থায়ী ও অনুমানযোগ্য|  

বন্ধুগণ!  

মেকিং ইনইন্ডিয়ার জন্য ইজরায়েলের প্রচুর কোম্পানি ভারতীয় কোম্পানির সঙ্গে হাত মিলিয়েছে| অন্যান্যদেরমধ্যে বিশেষ করে জল-প্রযুক্তি, কৃষি-কৌশল, প্রতিরক্ষা ও সুরক্ষা পদ্ধতি এবং ওষুধশিল্পের ক্ষেত্রে যারা এগিয়ে রয়েছে, তারা ভারতের মাটিতে কাজ করতে শুরু করেছে|একইরকমভাবে তথ্য-প্রযুক্তি, সেচ এবং ওষুধ শিল্পের বিভিন্ন ভারতীয় কোম্পানিওইজরায়েলে উল্লেখযোগ্যভাবে কাজ করছে|  

আমাদেরবাণিজ্যের ক্ষেত্রে হীরা হচ্ছে এক বিশেষ সামগ্রী| এক্ষেত্রে আগের চেয়ে এখন অনেকবেশি বাণিজ্য হচ্ছে যৌথভাবে| যদিও এগুলো সূচনা মাত্র| ইজরায়েলের সঙ্গে আমাদেরবাণিজ্য ৫ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি ছাড়িয়ে গেছে|  

কিন্তুতারপরও এগুলো বাস্তব সম্ভাব্যতার অনেক নীচে রয়েছে| আমাদেরকে অবশ্যই আমাদেরসম্ভাব্যতার সম্পূর্ণ অংশ অর্জন করতে হবে| এটা শুধুমাত্র কোনো কূটনৈতিক আবশ্যিকতানয়, এটা অর্থনৈতিক বিষয়ও| আমাদের সম্ভাব্যতাকে কীভাবে উন্মুক্ত করা যায়, এনিয়েআপনাদের পরামর্শকে আমি স্বাগত জানাচ্ছি| উদ্ভাবনা, অঙ্গীকরণ এবং সমস্যা সমাধানেরবিষয়টি দুই দেশের মধ্যেই সহজাত|  

এক্ষেত্রে একটি উদাহরণ দিতে চাই:  

আমরা যদিশুধুমাত্র আমাদের অপচয়কে বাঁচাতে এবং আমাদের ফল, সবজি ও উদ্যানবিষয়ক ক্ষেত্রেমূল্যযুক্ত করতে সহযোগী হই, তাহলে পরিবেশগত ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে কতটুকু লাভ হবে,তা ভাবুন! একই বিষয় জলের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য|  

জলেরক্ষেত্রে আমাদের প্রাচুর্য যেমন রয়েছে, তেমনি রয়েছে ঘাটতিও| আমাদের যেমন একটা অংশেখাবার ফেলা যায়, তেমনি প্রচুর মানুষ রয়েছেন যারা ক্ষুধার্ত|  

বন্ধুগণ!  

ভারতেরউন্নয়নের বিষয়সূচি রয়েছে প্রচুর| ইজরায়েলের কোম্পানির জন্য তা এক বিশাল অর্থনৈতিকসুযোগ প্রদান করে| আমি আরও বেশি করে ইজরায়েলের জনগণ, বাণিজ্য প্রতিষ্ঠান ওকোম্পানিকে ভারতে কাজ করার জন্য আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি| ভারতের সরকার ও জনগণেরসঙ্গে ব্যবসায়িক সম্প্রদায়ও এক্ষেত্রে হাত মেলাতে আগ্রহী| আমি আপনাদের কোম্পানি ওউদ্যোগগুলোর সাফল্য কামনা করছি| যেসব ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে সেখানে আমি এবং আমারসরকার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার নিশ্চয়তা দিচ্ছি| ভারত ও ইজরায়েলের মধ্যেবাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সহযোগিতাকে দ্রুত গতিশীল পথে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ধারাবাহিকঅবদানের জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি| আমাদের এইসহযোগিতার ক্ষেত্রে আসন্ন দিনগুলোতে আরও অনেক সাফল্য নিহিত রয়েছে বলে আমি বিশ্বাসকরি|  

আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ!  

 

 

 

 

ডোনেশন
Explore More
আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

জনপ্রিয় ভাষণ

আমাদের ‘চলতা হ্যায়’ মানসিকতা ছেড়ে ‘বদল সাকতা হ্যায়’ চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
Forex kitty continues to swells, scales past $451-billion mark

Media Coverage

Forex kitty continues to swells, scales past $451-billion mark
...

Nm on the go

Always be the first to hear from the PM. Get the App Now!
...
Prime Minister inteacts with scientists at IISER, Pune
December 07, 2019
শেয়ার
 
Comments

Prime Minister, Shri Narendra Modi today interacted with scientists from Indian Institute of Science  Education and Research (IISER) in Pune, Maharashtra . 

IISER scientists made presentations to the Prime Minister on varied topics ranging from  New Materials and devices for Clean Energy application to Agricultural Biotechnology to Natural Resource mapping. The presentations also showcased cutting edge technologies in the field of Molecular Biology, Antimicrobial resistance, Climate studies and Mathematical Finance research.

Prime Minister appreciated the scientists for their informative presentations. He urged them to develop low cost technologies that would cater to India's specific requirements and help in fast-tracking India's growth. 

Earlier, Prime Minister visited the IISER, Pune campus and interacted with the students and researchers. He also visited the state of the art super computer PARAM BRAHMA, deployed by C-DAC in IISER, which has a peak computing power of 797 Teraflops.

The Indian Institute of Science Education and Research (IISERs) are a group of premier science education and research institutes in India. 

Prime Minister is on a two day visit to attend the DGP's Conference in Pune.